মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর জন্য স্কাউটদের প্রতি রাষ্ট্রপতির আহ্বান

রাষ্ট্রপতি ও চীফ স্কাউট মো: আব্দুল হামিদ বলেছেন, স্কাউট আন্দোলন শিশু-কিশোরদের চারিত্রিক গুণাবলী বিকাশে গুরুত্ত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। লেখাপড়ার পাশাপাশি সামাজিক বিভিন্ন কর্মকান্ডে নিজেদেরকে সম্পৃক্ত করার মানসিকতা তৈরিতে স্কাউটিং এর ভূমিকা অনন্য। স্কাউটরা সমাজ সেবামূলক কাজের পাশাপাশি বিভিন্ন দেশের প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা আর্তমানবতার সেবায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলছে। প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশকে আরো সুন্দর করে তুলতে স্কাউটরা রাখতে পারে অগ্রণী ভূমিকা।

বিশেষ করে শিশু কিশোর ও যুবকদের মাদক ও ধর্মীয় সম্প্রদায়ীকতা সন্ত্রাস-জঙ্গীবাদের বিষবাষ্প থেকে নিরাপদ এবং দূরে রাখতে স্কাউটিং এর ইতিবাচক অবদান রাখতে পারে। স্কাউটিং এ পারে ভবিষ্যতে প্রজন্মকে আধুনিক ও প্রগতিশীল সৃজনশীল গড়ে তুলতে।

তিনি রোববার বিকালে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার মৌচাকে জাতীয় স্কাউট প্রশিক্ষন কেন্দ্রে বাংলাদেশ স্কাউটস আয়োজিত ৭দিন ব্যাপী ১০ম বাংলাদেশ ও ৩য় সানসো জাম্বুরী উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

এর আগে রাষ্ট্রপতি জাম্বুরি ময়দানে পৌছলে বাংলাদেশ স্কাউটসের সভাপতি প্রধান জাতীয় কমিশনারসহ স্কাউট কর্মকর্তাগন তাকে স্বাগত জানান। এর আগে মহামান্য রাষ্ট্রপতিকে জাম্বুরির স্কার্ফ, ব্যাজ, ওয়াগেল ও টুপি পড়িয়ে দেওয়া হয়। এছাড়া বয় স্কাউটস অব আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডেন ওনবে ও ইংল্যান্ডের ফিলিপস রবার্টকে বাংলাদেশ স্কাউটসের সর্বোচ্চ অ্যাওয়ার্ড রৌপ্য ব্যাঘ্র প্রদান করেন রাষ্ট্রপতি ও চীফ স্কাউট।

রাষ্ট্রপতি জাম্বুরি উদ্বোধন উপলক্ষ্যে স্মারক ডাকটিকিট উন্মোচন করেন। বাংলাদেশ স্কাউটসের সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্ত্বে আয়োজিত আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বাংলাশে স্কাউটসের প্রধান জাতীয় কমিশনার ড. মোজাম্মেল হক খান ও জাম্বুরী সাংগঠনিক কমিটির সভাপতি আক্তারুজ্জামান খান কবীর বক্তব্য রাখেন।

রাষ্ট্রপতি তার বক্তব্যে আরো বলেন, বর্তমান সরকার বাংলাদেশকে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্য আয়ের ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশ উন্নত দেশে পরিণত করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। সরকারের যথোপযুক্ত পরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের ফলে বাংলাদেশের সরকার যথোপযোগী পরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের ফলে বাংলাদেশ ইতিমধ্যে নিম্নমধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে। পেয়েছে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতি। উন্নয়নের এই অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে নতুন প্রজন্মকে দক্ষ ও মূল্যবোধ সম্পন্ন মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

বাংলাদেশের চলমান অগ্রযাত্রা নেতৃত্ব দানের জন্য আগামী প্রজন্ম স্কাউটিংয়ের মাধ্যমে দক্ষ মানব সম্পদে পরিণত করতে স্কাউটের নেতৃবৃন্দের প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, স্কাউট সৃষ্টিকর্তা ও দেশের প্রতি কর্তব্য পালন করতে এবং সর্বদা অপরকে সাহায্য করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়ে স্কাউট আন্দোলনের যোগদান করে। সামাজিক উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড বৃক্ষরোপণ পরিবেশ ও জীববৈচিত্র সংরক্ষণ জলবায়ু উষ্ণতা রেখে জনসচেতনতা তৈরি বন্যা, ঘূর্ণিঝড়, ধ্বংস, অগ্নিকান্ডের ঘটনা থেকে উদ্ধার কাজসহ জাতীয় দুর্যোগে স্কাউটরা সব সময় এগিয়ে আসে। তোমাদের এই সেবাধর্মী কার্যক্রম ভবিষ্যতে আরো বিস্তৃত লাভ করবে বলে আমি আশা করি।

তোমাদের অবস্থান হবে মাদককে মাদকের বিরুদ্ধে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে। অন্তরে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও দেশপ্রেম দেশকে ভালোবেসে কাজের অংশগ্রণের আহ্বান জানাবে আগামী দিনের তোমরাই বাংলাদেশের নেতৃত্ব দিবে। তোমরা এই জাতির জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ নির্মাণ করবে এই জন্য তোমাদের যোগ্য দক্ষ হয়ে উঠতে হবে।

রাষ্ট্রপতি এসময় স্কাউটদের অংশগ্রহনে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতি অনুষ্ঠান উপভোগ করেন এবং ক্যাম্প এলাকা ঘুরে দেখেন।

৮ মার্চ থেকে শুরু হওয়া এই জাম্বুরী চলবে আগামী ১৪ মার্চ পর্যন্ত। জাম্বুরীতে দেশ-বিদেশের প্রায় ১২ হাজার স্কাউট ছেলে-মেয়ে, স্বেচ্ছাসেবক ও কর্মকর্তা অংশগ্রহন করছেন।

mukim group

Leave a Reply

Your email address will not be published.